নীলাকাশ টুডেঃ সাতক্ষীরার আশাশুনি উপজেলার কুল্যা ইউনিয়নে অবৈধ সম্পর্কের ঘটনা জানাজানির পর ছোট ভাইয়ের স্ত্রীর আত্মহত্যার দু’দিনের ব্যবধানে ভাসুর আত্মহত্যা করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। ঘটনা ঘটেছে কুল্যা ইউনিয়নের কচুয়া গ্রামে।

এলাকাবাসী ও পারিবারিক সূত্রে জানাগেছে, কচুয়া গ্রামের ওবায়দুল্লাহর স্ত্রী জেসমিনের সাথে তার ভাসুর আব্দুল্লাহর গোপন সম্পর্ক ছিল। গত ২৫ জুন (শনিবার) সকাল ১০ টার দিকে তাদের আপত্তিকর অবস্থার খবর পরিবারের সদস্যরা জানতে পারলে এদিন বেলা ১১ টার দিকে জেসমিন বিষপান করে আত্মহত্যা করে। ময়না তদন্ত শেষে তার মৃতদেহ পিত্রালয়ে নিয়ে দাফন করা হয়।

পরিবারের সদস্যরা জানান, রবিবার দাফন অনুষ্ঠানে ওবায়দুল্লাহ, তার পিতা আঃ হামিদ ও মা যোগদেন। সেখানে যাওয়ার পর তাদেরকে আটকে রাখা হয়েছে এমন খবর কচুয়া পৌছলে আব্দুল্লাহ কচুয়া বিলে জনৈক লাল্টুর মৎস্য ঘেরের বাসায় গিয়ে বিষ পান করেন। লাল্টু ঘেরের আটন ঝাড়তে গিয়ে ঘেরের বাসায় আব্দুল্লাহকে ছটফট করতে দেখে দ্রুত তাদের বাড়িতে খবর দেন। তাদের বাড়ির লোকজন তাকে নিয়ে স্থানীয় ডাক্তারদের কাছে নিলে তারা ফেরৎ দিলে সাতক্ষীরার নেওয়ার পথে পথিমধ্যে সোমবার (২৭জুন) বিকাল ৫ টার দিকে তার মৃত্যু হয়। খবর পেয়ে বুধহাটা পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের এসআই সিয়াবুল ইসলাম, এএসআই হাবিবুর রহমান ঘটনাস্থানে পৌছে সুরতহাল রিপোর্ট তৈরি করেন।

বুধহাটা তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ এসআই সিয়াবুল ইসলাম বলেন, প্রাথমিক ভাবে ধারনা করা হচ্ছে বিষপান করে আত্মহত্যা করেছেন। লাশ ময়না তদন্তের জন্য মর্গে পাঠানোর তোড়জোড় চলছে, রিপোর্ট প্রাপ্তি শেষে বিস্তারিত বলা যাবে।