নীলাকাশ টুডেঃ ইউক্রেনে অবস্থিত ইউরোপের সর্ববৃহৎ পরমাণু কেন্দ্র জাপোরিজিয়া পরমাণু চুল্লির কাছে হামলায় চরম আতঙ্ক দেখা দিয়েছে ইউক্রেনীয়দের মধ্যে।

দেশটির প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি রাশিয়াকে থামাতে বিষ্ববাসীর কাছে উদাত্ত আহ্বান জানিয়েছেন। খবর আরব নিউজের।

এক টুইটবার্তায় রোববার তিনি বিশ্বনেতৃবৃন্দকে বলেন, পরমাণু কেন্দ্রের চুল্লির কাছে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালাচ্ছে রাশিয়া।যে কোন সময় চুল্লিতে হামলা হতে পারে।এতে গোটা অঞ্চল ভয়াবহ বিপর্যয়ের মধ্যে পড়বে।

ইউক্রেনের অভিযোগ, পরমাণু কেন্দ্রে যুদ্ধাস্ত্র মজুত করে রেখেছে রাশিয়া। রাশিয়ার পাল্টা অভিযোগ, পরমাণু চুল্লিটিকে ঢাল বানাচ্ছে ইউক্রেন।

ইউক্রেন-রাশিয়ার সম্মুখসমর ও বাগযুদ্ধ, দুই-ই অব্যাহত। যুদ্ধের গোড়াতেই দক্ষিণ ইউক্রেনের জাপুরিয়াজিয়ার পরমাণু কেন্দ্রটি দখল করে নেয় রাশিয়া।

এর পর থেকে এটি মস্কোর নিয়ন্ত্রণেই রয়েছে। ইউক্রেনের অভিযোগ, পরমাণু কেন্দ্রে যুদ্ধাস্ত্র মজুত করে রেখেছে রাশিয়া। শনিবার হামলা চলেছে এর সংলগ্ন এলাকায়।

রাশিয়ার পাল্টা অভিযোগ, পরমাণু চুল্লিটিকে ঢাল বানাচ্ছে ইউক্রেন। শনিবারের হামলার দায় নিতে অস্বীকার করেছে মস্কো। তাদের বক্তব্য, জাপুরিজিয়া পরমাণু শক্তি কেন্দ্র ও এনারগোদার শহরে ইউক্রেনের সশস্ত্র বাহিনী তিনটি হামলা চালিয়েছে।

ইউরোপের সর্ববৃহৎ এ পরমাণু কেন্দ্রে হামলা হলে বড় বিপর্যয় হতে পারে বলে বারবার দুই দেশকেই সতর্ক করা হয়েছে। কিন্তু তা সত্ত্বেও একাধিক বার হামলা চলেছে এই এলাকায়।

জাপুরিজিয়া পরমাণু কেন্দ্রের পরিচালনার দায়িত্বে রয়েছে ইউক্রেনের সরকারি সংস্থা এনারগোয়াটম। তারা জানিয়েছে, শনিবার তিনটি হামলা চলেছে এই এলাকায়। একেবারে চুল্লির কাছাকাছি বোমা পড়েছে।

এনারগোয়াটম জানিয়েছে, এ ভাবে হামলা চললে যে কোনও সময় হাইড্রোজেন চুঁইয়ে বেরোতে শুরু করবে। তেজস্ক্রিয় পদার্থও ছড়িয়ে পড়তে পারে। তাতে আগুন ধরে যাওয়ার আশঙ্কা প্রবল।

এনারগোয়াটমের পক্ষ থেকে আরও জানানো হয়েছে, রুশ পরমাণু নিয়ন্ত্রক সংস্থা রোসাটমের কর্মীরা হামলার ঠিক আগের মুহূর্তে এলাকা ছেড়ে পালায়। একটি পাওয়ার কেবলের ক্ষতি হয়েছে। একটি চুল্লি বন্ধ করে দিতে হয়েছে হামলার পরে।