নীলাকাশ টুডেঃ রুট পারমিট না পাওয়ায় সাতক্ষীরা থেকে বেশিরভাগ যাত্রীবাহী বাস পদ্মা সেতু হয়ে ঢাকায় যেতে পারছে না। রোববার (২৬ জুন) পদ্মা সেতু সবার জন্য উন্মুক্ত করে দেওয়া হলেও সাতক্ষীরা থেকে ঢাকাগামী বেশিরভাগ বাস চলাচল করছে আগের রুট হয়ে।

এখনো আরিচা -দৌলতদিয়া ফেরিঘাট হয়েই এসব বাস চলাচল করছে। তবে সোহাগ পরিবহন, টুঙ্গিপাড়া এক্সপ্রেস ও ইমাদ পরিবহন বর্তমানে পদ্মা সেতু হয়ে ঢাকায় যাচ্ছে। গ্রিন লাইন পরিবহন এই রুটে নতুন করে যাত্রীসেবা শুরু করেছে। এছাড়া বিআরটিসিও সরাসরি সাতক্ষীরার সুন্দরবন সংলগ্ন মুন্সিগঞ্জ বাসস্ট্যান্ড থেকে সরাসরি ঢাকা রুটে বাস চালু করবে বলে জানা গেছে।

পরিবহন মালিক সমিতির নেতারা বলছেন, নতুন রুটের বিষয়ে আন্তঃজেলা বাস মালিক সমিতির নেতাদের সঙ্গে আলোচনা চলছে। ১ জুলাই থেকে জেলার বেশিরভাগ বাস পদ্মা সেতু হয়ে ঢাকায় যাবে বলে আশা করছেন তারা।

সাতক্ষীরা একে ট্রাভেলস পরিবহনের ম্যানেজার কাজল হোসেন বলেন, ‘আমাদের সব বাস এখনো দৌলতদিয়া-আরিচা ফেরিঘাট হয়ে ঢাকা যাচ্ছে। মালিক সমিতির নেতাদের মধ্যে আলোচনা চলছে। আশা করছি, আগামী ১ জুলাই থেকে একে ট্রাভেলসসহ জেলার অন্য পরিবহনের বাসগুলো পদ্মা সেতু হয়ে ঢাকায় চলাচল করবে।’

 

সাতক্ষীরা লাইনস পরিবহনের ম্যানেজার মো. ইলিয়াস বলেন, ‘মালিক-মহাজনরা আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নিলে আমাদের বাস চালাতে কোনো সমস্যা নেই। আশা করছি ১ জুলাই থেকে বাস পদ্মা সেতু হয়ে ঢাকায় চলাচল শুরু করবে। তবে যেসব যাত্রী গাবতলী, কল্যাণপুর, শ্যামলী, সাইনবোর্ডসহ তার আশপাশে যাবেন তাদের জন্য আরিচা-দৌলতদিয়া রুটে অমাদের যাত্রীসেবা চালু থাকবে।’

এরই মধ্যে নতুন রুটে কয়েকটি কোম্পানির বাস চলাচল শুরু হয়েছে বলে জানান সাতক্ষীরা দূরপাল্লার যাত্রীবাহী পরিবহন মালিক সমিতির সভাপতি তাহমিদ হোসেন চয়ন।

তিনি বলেন, ‘সাতক্ষীরার পরিবহন মালিকদের গাড়িগুলো এখনো নতুন রুটে চালু হয়নি। বিষয়টি নিয়ে আমরা খুলনা, বাগেরহাট, গোপালগঞ্জ ও মাদারীপুরের বাস মালিক সমিতির নেতাদের সঙ্গে আলোচনা চালিয়ে যাচ্ছি। আশা করছি দ্রুত এ সমস্যার সমাধান হবে।

এদিকে, সাতক্ষীরার ভোমরা স্থলবন্দরের পণ্যবাহী ট্রাকগুলো পদ্মা সেতু হয়ে যাতায়াত শুরু করেছে। সকাল থেকে বেশিরভাগ পণ্যবাহী ট্রাক এই রুটে ঢাকার উদ্দেশ্যে ছেড়ে গেছে।

একজন ট্রাক চালক বলেন, ‘আজ প্রথম ভোমরা থেকে ফল নিয়ে পদ্মা সেতু হয়ে ঢাকায় যাবো। আশা করছি পাঁচ ঘণ্টার মধ্যে ঢাকায় পৌঁছে যাবো।’